ঢাকা, ১৪ জুন, ২০২৪ | জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১
ঢাকা, ১৪ জুন, ২০২৪       
Shruhid Tea

পর্যটকদের জন্য সুন্দরবন খোলার অনুমতি মেলেনি

মাসুদ রানা, মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি  বঙ্গবাণী

প্রকাশিত: ১০:৪১, ২১ আগস্ট ২০২১

পর্যটকদের জন্য সুন্দরবন খোলার অনুমতি মেলেনি

ছবি- বঙ্গবাণী

সারাদেশে করোনার সংক্রমণ দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সরকারের পক্ষ থেকে দেশের সবগুলো পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ ঘোষনা করা হয়। প্রতিটি পর্যটন কেন্দ্রে দর্শনার্থীদের যাতাযাতে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। 

করোনার সংক্রমণ কমে যাওয়া এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় ১৯ আগস্ট থেকে দেশের সব পর্যটন কেন্দ্র গুলো উন্মুক্ত করা হলেও খুলছে না সুন্দরবন। তাই বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবন দেখার জন্য অপেক্ষায় থাকা পর্যটকদের জন্য আপাতত সুখবর নেই। তবে পরিস্থিতি ইতিবাচক থাকলে খুব বেশি দিন হয়তো অপেক্ষা করতে হবে না দেশি-বিদেশি পর্যটকদের। এমনটাই জানালেন সংশ্লিষ্টরা।

সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার মোঃ আজাদ কবির জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাজ থেকে অনুমতি না মেলায় সারাদেশের ন্যায় সুন্দরবন পযটকদের জন্য উন্মুক্ত করতে পারেননি তারা। বন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, করোনা সংক্রমণ রোধে গত ৩ এপ্রিল সুন্দরবনের পর্যটক প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়ার পর গত সাড়ে চার মাসে প্রায় ১২ লাখ টাকার রাজস্ব হারিয়েছে বন বিভাগ।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, সুন্দরবন উন্মুক্ত করার জন্য কোন আদেশ এখন আমার কাছে আসেনি, তাই পর্যটকদের জন্য এটি উন্মুক্ত করা যাচ্ছে না। আদেশ আসলেই সর্বসাধারণের জন্য সুন্দরবন উন্মুক্ত হবে বলেও জানান তিনি।

সুন্দরবনের ট্যুর অপারেটর খাইরুল ইসলাম খোকন জানান, দেশে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত সাড়ে ৪ মাস ধরে সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা  ছিল। এতে করে মোংলার শতাধিক ট্যুর অপারেটর আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, দেশের অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রগুলো খুলে দেওয়া হলেও সুন্দরবন খোলার অনুমতি পায়নি। এটা সত্যিই দুঃখজনক। যত দ্রুত সম্ভব সুন্দরবনের সবগুলো পর্যটন কেন্দ্র খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান ট্যুর অপারেটররা।

বঙ্গবাণীডটকম/এমএস